কিভাবে এটিএম মেশিন কাজ করে ? এটিএম কার্ড স্কিমার !!!

বন্ধুরা এটিএম মেশিন সম্পর্কে  আপনারা সবাই জানেন। মানে  এটি এমন একটি মেশিন যেটার ভেতর আপনি প্লাস্টিকের কার্ড দিয়ে টাকা উঠিয়ে নিতে পারবেন। কিন্তু বন্ধুরা আপনারা কি জানেন এই মেশিন কিভাবে কাজ করে? হ্যালো” প্রিয়” রিডার! আপনাদের সবাইকে TechZoa.com এ স্বাগতম। আজকে আমি এই ব্লগ পোস্টে আপনাদের সাথে শেয়ার করব কিভাবে এই এটিএম মেশিন কাজ করে এবং “এটিএম কার্ড স্কিম্মেরস” কিছু এমন ডিভাইস যেগুলো আপনার কার্ডের তথ্য চুরি করতে পারে এবং পরে আপনাকে কোন ঝামেলায় ফেলতে পারে।

কিভাবে এটিএম মেশিন কাজ করে ?

বন্ধুরা এটিএম এর ফুল ফর্ম হচ্ছে “Automatic teller machine” এটি মূলত এমন একটি ডিভাইস যেটি আপনাকে basic banking সার্ভিসেস প্রদান করে। যে কোন জায়গায় যে কোন সময় ২৪ ঘন্টা আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে আপনি সাধারণত টাকা উইথড্র করতে পারবেন। টাকা অ্যাকাউন্টে ডিপোজিট করতে পারবেন এবং কিছু সময় আপনি চেক ও ডিপোজিট করতে পারবেন। তো এখনই মেশিনের ভেতর কি হয় ? যখনই আপনি ওই মেশিনের ভিতরে আপনার এটিএম কার্ড প্রবেশ করাবেন। তখন ওই কার্ডটিকে রিট করা হবে এবং এটি চেক করা হয়। যে ঐ কাজটি আসল নাকি নকল আর যদি ওই কার্ড আসল হয় তাহলে আপনার কার্ডে সঞ্চিত হওয়া একাউন্ট নাম্বার কি সেটা দেখা হবে। এখন আপনি ভাবতে পারেন কার্ডের ভিতর একাউন্ট নম্বর কিভাবে থাকবে? তো বন্ধুরা আপনার ক্রেডিট কার্ডের পিছনে যে কালো রঙ্গের একটি pattan আছে এটি হল একটি ম্যাগনেটিক pattan এবং এটির ভিতরে আপনার কার্ডের নাম্বার স্টোর করা হয়।

এখন আপনি যদি না জানেন কালো pattern গুলো ভেতর কিভাবে কার্ডের নম্বর স্টোর করা হয়। তখন ঐ মেশিনের ভেতর থাকা reader স্ক্যান করে দেখবে যে কাজটি আসল নাকি নকল একটি প্রমাণীকরণ ব্যবহার করে এবং তার সাথে দেখবে আপনার কার্ডের নাম্বার টি কি।যদি এই মেশিন কোন কারনে আপনার কার্ড থেকে ডিলিট করতে না পারে। মনে করুন আপনার কার্ডে অনেক আঁচড়ের দাগ পড়েছে বা কার্ডটি ক্ষতিগ্রস্ত অথবা এই মেশিন রিডার টি খারাপ তাহলে আপনার স্ক্রিন এ error  আসবে। এরপর যদি আপনার কার্ডটি সম্পূর্ণভাবে read হয়ে যায় কোন সমস্যা ছাড়া তারপরে আপনার কাছে আপনার পিন নাম্বার জিজ্ঞাসা করা হবে। PIN মানে Personal Identification Number.যখনই আপনি আপনার পিন নম্বর ইন্টার করবেন। সম্পূর্ণ তথ্য আপনার ব্যাংকের সার্ভারের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। একবার আপনার ব্যাংক পর্যন্ত তথ্য পৌঁছে গেলে। আপনার ব্যাঙ্ক এটিএম মেশিন কে পারমিশন দিয়ে দিবে যে ইউজার আছে সেটি অরজিনাল জেনুইন user এবং তারপরে আপনি ট্রানজেকশন কিভাবে কমপ্লিট করবেন এটা আপনার ব্যাপার। একবার মেশিন পর্যন্ত তথ্য আসলে খুব সহজে আপনি এটিএম মেশিন ব্যবহার করে আপনার যত টাকা উঠানোর দরকার আপনি উঠাতে পারবেন। তো আপনি এখন ভাবতে পারেন আপনি যে টাকাগুলো উঠাবেন সেগুলো কিভাবে ঐ মেশিনের ভেতর রাখা হয়েছে। মেশিনের ভেতর অনেকগুলো ট্রে লাগানো থাকে। সেখানে নানারকম নোট সাজিয়ে রাখা হয় । যা একটি একটি করে নোট ঐখান থেকে উঠায় আপনি কয়টা নোট withdraw করেছেন সেই হিসেবে এবং এক একটি নোট স্ক্যান করে এইটা ঠিক নোট নাকি যেটা আপনার পাওয়ার কথা এবং তারপর মেশিন থেকে আপনাকে নোট দেয়া হবে। আপনি যখন নোট ডিপোজিট করতে যাবেন তখন একই প্রক্রিয়ায় আপনার নোট গুলো চেক করে তারপর ভিতরে নেয়া হবে যদি আপনার নোটে কোন error থাকে তাহলে নোটটি আবার বের হয়ে আসবে আর যদি নোট ঠিক থাকে তাহলে মেশিনের ভেতর ট্রে গুলোতে স্টোর হয়ে যাবে।

আপনি চেক ও ডিপোজিট করতে পারবেন। আপনি যদি কোন চেক ডিপোজিট করেন। তাহলে এই চেক কে  স্ক্যান করা হয়। আপনি যদি কোন চেক ডিপোজিট করেন। তাহলে এই চেক কে স্ক্যান করা হয় এবং আপনাকে স্ক্রিন এ দেখানো হয়। যে আপনি যেই চেক দিয়েছেন। তা ঠিক না কি। এরপরেই চেক গুলো মেশিন থেকে কালেক্ট করা হয়।

এটিএম কার্ড স্কিমার।

বন্ধুরা এটা এমন একটি জিনিস যেটা কিছু মানুষ ব্যবহার করে আপনার কার্ডের তথ্য চুরি করার জন্য, এখন এখানে চুরি করার জন্য দুটি জিনিস আছে প্রথমটি হলো আপনার কার্ড magnetically রক্ষা করা authentication Key আর দ্বিতীয়ত আপনার পিন নম্বর।এই দুটি জিনিস যদি কেউ জেনে থাকে তাহলে আপনার ক্রেডিট কার্ড থেকে টাকা উঠাতে পারবে। তো আপনার কার্ডের details চুরি করার জন্য চোরেরা ব্যবহার করে  “এটিএম স্কিমের”

এটিএম স্কিমের

এটি এমন একটি ডিভাইস যেখানে আপনি আপনার কার্ড প্রবেশ করান এটিএম এর ভেতর সেখানে এই ডিভাইসটি লাগিয়ে দেওয়া হয়।তো আপনি যখন মেশিনের ভেতর আপনার কার্ড প্রবেশ করাবেন তখন মেশিনের সাথে সাথে ঐ skimmer তাও আপনার কার্ডকে স্ক্যান করে নিবে। এবং এর উপর একটি ক্যামেরা লাগিয়ে দেবে যার মাধ্যমে আপনি যে পিনটি দিবেন সেটিও যাতে চোর দেখতে পারে পরে। এই দুটি যদি কোন চোরের কাছে থাকে।এরপর চোর আপনার কার্ড  দিয়ে একটি নকল কার্ড তৈরি করবে। তাহলে সে আপনার কার্ড থেকে যেকোনো জায়গায় টাকা উঠাতে পারবে। যদি আপনি এটিএম কার্ড ব্যবহার করে থাকেন তাহলে এদিকে খেয়াল রাখবেন আর যদি আপনি পিন দেওয়ার সময় আপনার হাত দিয়ে pin ঢেকে দেন তাহলে আরো ভালো হবে।

এটিএম কার্ড স্কিমমার


বন্ধুরা আজকের জন্য এতটুকুই 🙂 আবার আসব কোন নতুন টপিক নিয়ে। সেই পর্যন্ত আমাদের সাথে কানেক্টেড থাকুন এবং আমাদের পোস্টগুলো শেয়ার করতে ভুলবেন না। কোন কিছু জানার থাকলে কমেন্টে প্রশ্ন করবেন। সেই পর্যন্ত ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। 🙂

About the author

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *